Tuesday , November 13 2018
Home / Blog / ল্যাপটপকে সুস্থ রাখতে কিছু সতর্কতা

ল্যাপটপকে সুস্থ রাখতে কিছু সতর্কতা

ল্যাপটপ আমাদের অনেকের কাছেই শখের একটি বস্তু আর অবশ্যই প্রয়োজন আর তো বটেই। আমরা যখন ল্যাপটপকে ব্যবহার করছি তখন যদি আমরা কিছু নিয়ম কানুন মেনে চলি তাহলে আমাদের ল্যাপটপের স্থায়িত্ব অনেকাংশে বেড়ে যাবে । ল্যাপটপ ব্যবহার করার সময় আমাদেরকে একটু সতর্ক থাকতে হবে।

ল্যাপটপ কে সামনে রেখে আমরা তরল খাবার পান খাওয়ার সময় যথেষ্ট সতর্ক থাকতে হবে যেন ল্যাপটপ এর ওপরে না পরে। আমার দুইটা কিবোর্ড পানি পড়ার কারণে নষ্ট হয়ে যায়। আমি পানি পান করে মাউস প্যাড এর পাশেই রেখেছিলাম । মাউস নাড়াতে গিয়ে হঠাৎ করেই গ্লাসটি পড়ে যায় এবং আমার কিবোর্ড এর মধ্যে গ্লাসের বেশির ভাগ পানি পড়ে যায়। কিছু বাটন কাজ করা বন্ধ করে দেয় তাই আমাকে নতুন আরেকটি কিবোর্ড কিনতে হয়। সেটি যেহেতু আমার এক্সটার্নাল কিবোর্ড ছিল তাই বড় ধরনের খরচের হাত থেকে আমি বেচে গিয়েছি। কিন্তু ল্যাপটপ এর Built-in কিবোর্ড হত তাহলে খরচ হয়তো একটু বেশি পড়তো তার সাথে সাথে সময় ও খরচ হতো । তাই তরল পানীয় ল্যাপটপের আশে পাশ থেকে দূরে রাখাই উত্তম ।

আপনার ল্যাপটপের স্ক্রিনের জন্য একটি ভালো মানের স্ক্রিন প্রটেক্টর লাগিয়ে নিবেন । বর্তমানের স্ক্রিন গুলো খুবই সেনসিটিভ হয় ।হালকা-পাতলা আঘাত যেন আপনার ল্যাপটপ স্ক্রিনে না পরের জন্য একটি স্ক্রিন প্রোটেক্টর লাগেনা উত্তম। আর অবশ্যই স্ক্রিন পরিষ্কার করার সময় নরম কাপড় দিয়ে স্ক্রিন পরিষ্কার করবেন। খুব জোরেই স্ক্রিন পরিষ্কার করবেন না। স্ক্রিন পরিষ্কার করার সময় অবশ্যই পিন পরিষ্কার করার জন্য যেসব স্ক্রিন ক্লিনার আছে সেগুলো ব্যবহার করবেন। কোন অবস্থাতে পানি ব্যবহার করা যাবে না ।

আপনার যদি একটু বেশি পরিমাণে লেখালেখি করার প্রয়োজন হয় তাহলে অবশ্য একটি এক্সটার্নাল কিবোর্ড নিবেন। এবং আপনার ল্যাপটপের কিবোর্ড এর জন্য একটি কিবোর্ড প্রটেক্টর কিনে নিবেন যার ফলে আপনার ল্যাপটপের কিবোর্ড এর মাধ্যমে ধুলাবালি প্রবেশ করতে পারবে না ।
প্রতিদিন ল্যাপটপ ব্যবহার করার পর ল্যাপটপ এর মধ্যে যে সমস্ত হালকা ধুলাবালি জমা হয় সেগুলো প্রতিদিনই পরিষ্কার করে রাখবেন । ল্যাপটপের ভেন্টিলেশনের জায়গাটা খালি আছে কিনা সেই দেশটা লক্ষ্য রাখবেন সেইখানে কোন কিছু রাখবেন না বা এমন কোথাও ল্যাপটপ রাখবেন না যেখানে ল্যাপটপ এর ভেন্টিলেশনে বাধাপ্রাপ্ত হয় ।

সব সময় ল্যাপটপকে বৈদ্যুতিক সংযোগের চালাবেন না। মাঝে মাঝে আপনার ব্যাটারি মাধ্যমে চালাবেন এবং ব্যাটারির সম্পূর্ণ চার্জ টুকু শেষ করবেন।

আপনার ল্যাপটপের চার্জার এডাপটার যদি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে অবশ্যই পুরনো এডাপটার সমতুল্য ভালো মানের একটি এডাপটার কিনবেন ।

ধুলাবালি পূর্ণ জায়গায় ল্যাপটপ ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকবেন । ল্যাপটপ যদি অতিরিক্ত গরম হয়ে যায় তাহলে ল্যাপটপকে ঠান্ডা কর ব্যবস্থা নিবেন।

আপনার ল্যাপটপের ক্ষমতার অতিরিক্ত কোনো কাজ ল্যাপটপের মাধ্যমে করবেন না।

এই ছোটখাটো বিষয়গুলো মাথায় রেখে ল্যাপটপ ব্যবহার করলে আমাদের ল্যাপটপের স্থায়িত্ব আশা করছি একটু বেড়ে যাবে ।

About Fuad Hasan

আমি খুবই সাধারন একজন মানুষ যে কিনা প্রচন্ড কম্পিউটার পাগল । যে নতুন কিছু করতে চায়। বিশাল পৃথীবির জ্ঞান ভান্ডার হতে কিছু জ্ঞান অর্জন করতে চায়। অর্জিত জ্ঞান হতে কিছু শেখাতেও চায়।এবং মুসলিম হিসেবে, বাংলাদেশী হিসেবে, বাঙ্গালী হিসেবে এবং মানুষ হিসেবে যেসব দায়িত্ব আছে তা পালন করতে চায়।

Check Also

আলেকজান্ডারের কফিন

মৃত্যু শয্যায় মহাবীর আলেকজান্ডার তার সেনাপতিদের ডেকে বলেছিলেন,’আমার মৃত্যুর পর আমার তিনটা ইচ্ছা তোমরা পূরণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.